labiba eid 1দুপুরে খাওয়ার পরে লাবিবাকে ঘুম পাড়াতে হয় আমাকে! লাবিবাকে প্রতিদিনই একটা করে ভূত, রাক্ষস আর রাজা-রাণীর গল্প শোনাতে হয়।

আজকে লাবিবা আমাকে বিছানায় নিয়ে এসে বলে রাক্ষসের গল্প শোনাও! ওকে গল্প শোনাতে শোনাতে আমার গল্প ভাণ্ডার শেষ! আজকে বানিয়ে বানিয়েই গল্প বলছি …!

– বাবা, তুমি বানিয়ে বানিয়ে বলছো কেনো?
– নাহ্ তো!
– তাহলে আমাকে গল্পটা দেখাও!
– কিভাবে দেখাবো?
– ইউটিউবে!
– আচ্ছা, ঠিকাছে পড়ে দেখাবো!
– নাহ্। এক্ষুনি দেখাও!

লাবিবার ঘুম আসে না; কৌতুহল বাড়ে! ও ওর ট্যাব আমার দিকে এগিয়ে দেয়! ওদিকে আমি ঘুমে ভেঙে পড়ি।

লাবিবা ওর হাত আমার মুখে নিচের দিক থেকে ওপরের দিকে টান দেয়। আমি ভাবছি; আমার ঘুম ভাঙাচ্ছে। দেখি ও এই কাজটি বারবার করছে।

– বাবা, এরকম করছো কেনো?
– সাউন্ড বাড়াচ্ছি!
– মানে?
– সাউন্ড তো কমে যাচ্ছে!
– আমাকে কি ট্যাব মনে করছো?

লাবিবা হাসতে হাসতে বিছানা থেকে উঠে ড্রয়িং রুমের দিকে দৌড় দেয়।