jiner badsaরাত ১২ টার পর অফিসের গাড়িতে বাসায় ফিরছি। হঠাৎ ফোন আসে একটি অপরিচিত নম্বর থেকে। রিসিভ করতেই বুঝতে পারি কে ফোন করেছে।

তার কথাগুলো রেকর্ড করার প্রয়োজন কিন্তু তিনি যে নম্বরে ফোন দিয়েছেন সেটির হ্যান্ডসেটে সেই অপশন নেই। তাকে কৌশলে অন্য নম্বরে ফোন দিতে বলি। তিনি উল্টো আমাকেই তার নম্বরে ফোন দিতে বলেন।

গাড়িতে থাকাকালীন অনেকবার চেষ্টা করলাম। কিন্তু সেই নম্বর শুধু বিজি পাই। গাড়িতে বসেই কলিগ সামি ও ড্রাইভার সাইফুলের সঙ্গে আলাপ করি। তিনি আমাকে অন্য কোথাও দেখা করতে বলবে; কিন্তু আমিই তাকে ঢাকাতে দেখা করতে বলবো!

গাড়ি থেকে নেমে বাসায় যেই কলিংবেল টিপেছি; তখনই তার ফোন আসে। আমি ফোন রিসিভ করি। ওদিকে বউ দরজা খুলে দেয়। আমি জামা কাপড় চেঞ্জ না করেই ড্রয়িং রুমে বসেই তার সাথে কথা চালাচ্ছি। তিনি যা-ই বলেন আমি তাতেই সায় দেই! বউ বিরক্ত হয়!

আমি মোবাইল একটু দূরে সরিয়ে বউকে আস্তে আস্তে বলি ‘জিনের বাদশার সঙ্গে কথা বলতেছি!’ বউয়ের আগ্রহ বাড়ে। বউও মোবাইলের কাছে তার কান আগায়ে দেয়; জিনের বাদশার কথা শোনে আর মিটিমিটি হাসে!

এর আগেও একবার জিনের বাদশা আমাকে কল করেছিলো। তার কথার ধরণ আর ইনির কথার ধরণ এক। সেবার পাত্তা দেই নাই; এবার পাত্তা দিয়ে মাথায় তুলে নিচ্ছি। এমন পাত্তা দেই যে; জিনের বাদশা আমাকে তার ছেলে বানায়ে ফেলে!

তিনি প্রতিশ্রুতি দেন, তিনি সবসময় আমার সঙ্গে থাকবেন এবং আমাকে সাত কলস মহর পাইয়ে দিবেন! আমি খুশিতে আত্মহারা হই! তাকে জানাই, কবে পাবো সেই মহর!

জিনের বাদশা আমাকে সিলেট শাহজালাল মাজারে গিয়ে সিন্নি করতে বলেন। একত্রিশটি মোমবাতি আর একত্রিশটি আগরবাতিও জ্বালাতে বলেন। আমি তাকে ঢাকায় আসতে বলি। ঢাকার কোনো মাজারে গিয়ে সিন্নি দিতে চাই।

তিনি জানান, সিলেটের এক মসজিদের মুয়াজ্জিনের শরীরে ভর করে তার মোবাইল দিয়ে আমাকে ফোন দিয়েছে। আমাকে সিলেটেই যেতে হবে। পরে অন্য কোনো দিন ঢাকায় আসবেন সেটাও জানান।

আমাকে যে সাত কলস মহর দিবে। সেই সাত কলসের মধ্যে বিষধর সাপ আছে। সাপ যেনো আমাকে কোনো ক্ষতি করতে না পারে সে জন্য তিনি আমাকে একটি আংটি দিবেন। আংটি নিতে সিলেটে যেতে হবে।

আমিও নাছোর বান্দা; তাকে ঢাকার কোনো মুয়াজ্জিনের শরীরে ভর করতে বলি। তিনি কিছুক্ষণ ধ্যানে বসে আমাকে জানান, আমাকে আর সিলেটে যাওয়া লাগবে না। আমি খুশি হই; বলি কি করতে হবে?

তিনি বলেন, তার ওই নম্বরে তিনশত একত্রিশ টাকা ফ্লেক্সিলোড করতে। তিনি ওই মুয়াজ্জিনকে রিকোয়েস্ট করে আমার পক্ষ থেকে সিন্নি করানোর ব্যবস্থা করে দিবেন। আর পরের দিন আংটি পাওয়ার ব্যবস্থাও করে দিবেন!

জিনের বাদশার সঙ্গে দেড় ঘণ্টার কথাবার্তায় আমার কান গরম হয়! গভীর রাতে বউও রেগে গড়গড় করে।