shadows-of-timeরাতে আবারো Schatten der Zeit (Shadows of Time) ছবিটি দেখলাম। এর আগেও কয়েকবার দেখেছি। এটি বাংলা ভাষার রোমান্টিক জার্মান ছবি; যেটির পুরোটিই কোলকাতায় নির্মিত। ২০০৪ সালে টরেন্টো ইন্টারন্যাশনাল ফিল্ম ফেস্টিভ্যালে মুক্তি পাওয়া ১২২ মিনিটের এই ছবিটি পরিচালনা করেছেন একাডেমি এ্যাওয়ার্ড প্রাপ্ত জার্মান পরিচালক ফ্লোরিয়ান গ্যালেনবারজার।

পশ্চিমবঙ্গের একটি পরিত্যক্ত কার্পেট কারখানার শিশু শ্রমিক রবি গুপ্তের সাথে পিতা দ্বারা বিক্রি হয়ে আসা একটি মেয়ে শিশু মাশার বন্ধুত্ব হয়। কার্পেট কারখানার ম্যানেজার মাশাকে অন্যত্র বিক্রি করে দিতে চায়। কিন্তু রবি তাকে তার কষ্টার্জিত অর্থের বিনিময়ে মাশাকে কারখানা থেকে মুক্ত করে দেয়। পুরো ছবির মধ্যে ছবির শুরুতে শিশু রবি আর শিশু মাশার বন্ধুত্ব, তাদের মান-অভিমান, প্রতিশ্রুতির দৃশ্যগুলোর তুলনা হয়না! প্রতিটি সিকোয়েন্সই আলাদা রকমের স্বাদ পাওয়া যায়।

শিশু রবি ও মাশা এক সময় বড় হয়, দুজন দুজনকে খুঁজতে থাকে! যখন দেখা হয় তখন তারা দুজনই সংসারি! তারা বুড়োও হয় তবে তাদের একসাথে থাকার সৌভাগ্য হয় না! ছবির শুরু থেকে শেষ পর্যন্ত একটি ভালোবাসার গল্প! ভালো লাগার গল্প!

তবে শিশু রবির চরিত্রে সিকান্দার আগারওয়াল ও শিশু মাশার চরিত্রে চুম্পা দাসের অভিনয় মনে দাগ কাটার মতো। যুবক রবির চরিত্রে প্রশান্ত নারায়ন ও বৃদ্ধ রবির চরিত্রে সৌমিত্র চ্যাটার্জীর পাশাপাশি মাশার চরিত্রে তানিশা চ্যাটার্জী ও সোভা সেনের অভিনয়ও ভালো লেগেছে। মাশার স্বামীর চরিত্রে ইরফান খান ও রবির স্ত্রীর চরিত্রে তিলোত্তমা সোম অভিনয় করেছেন।